October 27, 2020
You can use WP menu builder to build menus

করোনা ভাইরাসের সবচেয়ে সহজতম ও সল্পখরচের চিকিৎসা যাতে কিনা ৪৮ ঘন্টায় সুস্থতার হার ৯৫% Scabo 6/ Ivera 6 ( Ivermectin 6 mg Tablet)শুরু হল আমেরিকায়- আমেরিকা থেকে বাংলাদেশী চিকিৎসক ডক্টর মাসুদ!

করোনা ভাইরাসের চিকিৎসায় যখন একের পর এক বিভিন্ন এন্টিবায়োটিক এবং এন্টিভাইরাল এর চিকিৎসা চালিয়ে তেমন কোনো সাফল্য মিলছিল না এমন এক সময় আশার আলো নিয়ে এল একটি এন্টিহেলমিনথিক বা কৃমির এবং বহুল ব্যবহৃত স্ক্যাবিসিডাল ড্রাগ আইভারমেকটিন যা বাংলাদেশে অত্যন্ত কম মূল্যে পাওয়া যায় ৬ টাকা প্রতি ট্যাবলেট।

বাংলাদেশের ডেল্টা ফার্মার Scabo 6 নামের এই ট্যাবলেটটি আমেরিকায় ব্যবহৃত হচ্ছে বলে জানান সেখানকার কর্মরত বাংলাদেশী চিকিৎসক ডক্টর মাসুদ।
এছাড়া আমাদের দেশে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ও Ivera 6 এবং 12 mg এর আছে। তিনি বলেছেন, যদি কোন ব্যক্তি আক্রান্ত হওয়ার প্রথম সপ্তাহে এই অষুধ গ্রহণ করেন তাহলে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ৯৬% সুস্থ হয়ে যাবে। যে সকল রোগীর বয়স ১৮ বছরের বেশী বা যাদের মধ্যে এ উপসর্গ রয়েছে তাদের উপরি এটি প্রয়োগ করা হচ্ছে। তবে এর সাথে জ্বর, ঠান্ডা এবং সেকেন্ডারি ইনফেকশন এর উপসর্গ থাকলে একটি এন্টিবায়োটিক ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য যে আমাদের ওয়েবসাইটে পূর্বেই আইভারমেকটিন যে করোনার চিকিৎসা হিসেবে ব্যবহার হতে পারে সে সম্পর্কে অস্ট্রেলিয়ার গবেষকদের গবেষণা ও তাদের মতামত প্রকাশ করা হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ার মোনাস ইউনিভার্সিটির বায়োমেডিসিন ডিসকভারি ইন্সটিটিউট যৌথভাবে পিটার ডোহার্টি ইন্সটিটিউট অফ ইনফেকশন এন্ড ইমিউনিটি গবেষণা করে দেখিয়েছিলেন যে আইভারমেকটিন নামক ঔষধটি ২৪ ঘন্টার মধ্যে ভাইরাল লোড( ভাইরাল RNA) cell culture এ শতকরা ৯৩ ভাগ এবং ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে শতকরা ৯৯.৮ ভাগ যা কি না ৫০০০ গুন করোনা ভাইরাসের RNA কমিয়ে আনে যাতে প্রায় ভাইরাসের সম্পুর্ন উপাদানের বিলুপ্তি ঘটে।

যেহেতু আমাদের দেশে আমরা সকল রোগীদেএ পর্যাপ্ত অক্সিজেন এবং আই সি ইউ দিতে পারছি না,,এমনকি সচিব ও খোদ চিকিৎসকরাই আই সি ইউ এর চিকিৎসা সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, সে ক্ষেত্রে রোগ দমনের সবচেয়ে সহজ উপায় প্রাথমিক পর্যায়েই উপসর্গ প্রকাশ বা উপসর্গহীন পর্যায়ে রোগীদের বা বছরের এই সময়ে কৃমির প্রাদুর্ভাব বেশী, সে হিসেবে একটি সহজলভ্য কৃমি বা স্ক্যাবিসিডাল ঔষধ খেতে দিয়ে করোনা নামক আতংককে জটিল পর্যায়ে নিয়ে যেতে বাধা প্রদান করা। কেননা আমাদেএ দেশের Scabo 6 নামের এই ঔষধ এখন যুক্তরাষ্ট্রে করোনা চিকিৎসায় ব্যবহৃত হচ্ছে। এখন উপসর্গবিহ্যীন করোনার প্রাদুর্ভাবও প্রচুর। সেক্ষেত্রে প্রকৃতপক্ষে কে আক্রান্ত, কতজন সেই সংখ্যাও বলা মুশকিল।

সেজন্য এই ঔষধ যদি ইনফেকশন এর উপসর্গ প্রকাশ হওয়ার শুরুতেই দেয়া যায় তবে তা ভাইরাল লোড বহুগুনে কমিয়ে আনবে, এবং রোগপ্রতিরোধে ওবং সংক্রমন ঠেকাতে অনেক কার্যকর ভূমিকা পালন করবে। যেহেতু ঔষধটি আমাদের দেশে সহজলভ্য এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনেক কম ও নিরাপদ, তাই আমাদের দেশে আমরা করোনা ভাইরাস এর চিকিৎসায় পজিটিভ রোগীদের বা উপসর্গ প্রকাশ পেয়েছে এখনও পরীক্ষা হয় নি এমন রোগীদের সহজেই শুরুতেই দিয়ে এই ভাইরাসটির সংক্রমন ও কার্যকারিতা কমিয়ে এনে জীবন বাচাতে পারি ইনশাআল্লাহ।

আর যেসকল রোগী বাসায় করোনা ভাইরাসের চিকিৎসানিছেন বা আইসোলেশন বা কোয়ারান্টাইনে আছেন, তারাও চিকিৎসক এর  পরামর্শ নিয়ে সহজে এ ঔষধসেবন করে উপকৃত হতে পারেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে,  এই ঔষধ এখনো  করোণা ভাইরাসের চিকিৎসায়  FDA অনুমোদিত না, কিন্তু যেহেতু এটা নিরাপদ এবং বহুল ব্যবহৃত  এবং স্ক্যাবিস ও কৃমি এমিনকি উকুনের চিকিৎসায় অনুমোদিত , এছারা ডেঙ্গু এবং ইয়েলো ফিভার,  জিকা ভাইরাসেও ব্যবহৃত হয়েছে,  তাই আমরা নিঃসংকোচে এই ঔষধ করোনা রূগীকে দিতে পারি।      ওই ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি   আকর্ষণ করছি।

 

আল্লাহ পাক আমাদের সহায় হোন। আমিন।

Spread the love

doctorings

No Comments

Leave a Comment